শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৮:১৫ পূর্বাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
বিশ্বব্যাপী ওমিক্রন সংক্রমণ বৃদ্ধিতে আইসোলেশন মেয়াদ অর্ধেক করার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ওমিক্রন ভেরিয়েন্ট ডেল্টা ও বিটার তুলনায় তিন গুণের বেশী পুনঃ সংক্রমন ঘটাতে পারে : গবেষণা প্রতিবেদন জাতিসংঘ ভবনের বাইরে এক বন্দুকধারী গ্রেফতার শান্তি চুক্তির পঞ্চম বার্ষিকী উপলক্ষে কলম্বিয়া সফর জাতিসংঘ মহাসচিব সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে তিন বাহিনীর প্রধানগণের সাক্ষাৎ করোনা ভাইরাসের সংক্রমন বেড়ে যাওয়ায় অস্ট্রিয়ায় লকডাউন করোনা সংক্রমণ বাড়ায় ইউরোপের বিভিন্ন দেশে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ ভারতে নতুন করে ১০ হাজার ৩০২ জন করোনায় আক্রান্ত নভেম্বর মাসজুড়ে করাঞ্চলে কর মেলার সেবা পাবেন করদাতারা ঔপনিবেশিক আমলের ফৌজদারী কার্যবিধি যুগোপযোগী হচ্ছে

রাজবাড়ীতে ঠান্টু হত্যা মামলায় পুত্রের ফাঁসি-পিতার যাবজ্জীবন কারাদন্ড

  • আপডেট সময় বুধবার, ১৫ আগস্ট, ২০১৮

॥শিহাবুর রহমান॥ রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের বেথুলিয়া ডাঙ্গীপাড়া গ্রামের চাঞ্চল্যকর ঠান্টু(২৫) হত্যা মামলায় রায়ে অভিযুক্ত রবিউল ইসলাম (৩০)কে ফাঁসি ও তার পিতা মিনাজ উদ্দিন সরদার (৬৩)কে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও প্রত্যেক ২০ হাজার টাকা জরিমান অনাদায়ে আরো ৩মাসের কারাদন্ডের আদেশ প্রদান করেছে জেলা ও দায়রা জজ আদালত।
গতকাল ১৪ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০টায় জনাকীর্ণ আদালতে জেলা ও দায়রা জজ মোঃ আমিনুল হক এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়াও রায়ে অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় ৪জনকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়। রায় ঘোষণাকালে আসামীরা কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। দন্ডপ্রাপ্তদের বাড়ী রামকান্তপুর ইউনিয়নের বেথুলিয়া ডাঙ্গীপাড়া গ্রামে। বিগত ২০১৩ সালের ১৩ই মে সন্ধ্যায় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত ঠান্টু বেথুলিয়া ডাঙ্গীপাড়া গ্রামের মৃত আকবর আলী শেখের ছেলে।
জানাযায়, বিগত ২০১৩ সালের ১২ই মে বিকেলে বেথুলিয়া ডাঙ্গীপাড়া গ্রামে মৃত আকবর আলী শেখের বাড়ীর একটি চারা গাছ প্রতিবেশী মিনাজ উদ্দিন সরদারের ছাগলে খায়। এ বিষয়ে ওই বাড়ীর লোকজন প্রতিবাদ করলে মিনাজের পুত্র রবিউল ও তার ভাই খোরশেদ ওই বাড়ীতে গিয়ে মহিলাদের গালিগালাজ করে। এ প্রেক্ষিতে গত ১৩ই মে রাত সাড়ে ৭টার দিকে ঠান্ডুদের বাড়ীতে রামকান্তপুর ইউপির সাবেক মেম্বার আব্দুল জলিলসহ অন্যান্যরা শালিসের আয়োজন করে। শালিসে রবিউল(২৩), তার ভাই খোরশেদ আলম(২৮) ও তাদের পিতা মিনাজ উদ্দিন শালিসের বসতে অস্বীকার করে পরে শালিস অনুষ্ঠানের কথা বলে। তখন ঠান্ডু ও তার ভাই লিটন প্রতিবাদ করলে কথা কাটিকাটির এক পর্যায়ে রবিউল, খোরশেদসহ তাদের পিতা মিনাজ উদ্দিন কোমরে গোঁজা ধারালো দা বের করে ঠান্ডু ও লিটনকে এলোপাথারীভাবে কুপিয়ে জখম করে চলে যায়। এ ঘটনার পর গুরুতর অবস্থায় তাদের দুইজনকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিসৎক ঠান্টুকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।
এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই লিটন মাহমুদ বাদী হয়ে ৫জনের নাম উল্লেখ করাসহ অজ্ঞাত ১০/১২জনকে আসামী করে রাজবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেন। রাজবাড়ী থানার মামলা নং-২৩, তাং-১৪/৫/২০১৩ইং, ধারাঃ ১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩০৭/৩০২/১১৪ পেনাল কোর্ড। মামলার আসামীরা হলো ঃ মিনাজ উদ্দিন সরদার ও তার ছেলে খোরশেদ সরদার, রবিউল ইসলাম, মিনাজ উদ্দিনের স্ত্রী বেলুয়া বেগম ও মেয়ে পলি।
পরবর্তীতে ২০১৪ সালের ২রা জুলাই এ হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই গাজী মাহাবুবুর রহমান উল্লেখিত ৫জনসহ মিনাজ উদ্দিনের ছোট ভাই দেলোয়ার ওরফে দিলুসহ মোট ৬জনের নাম উল্লেখ করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।
দীর্ঘ ৫বছর পর গতকাল ১৪ই আগস্ট সকালে এ হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করে আদালত। রায়ে অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় চার্জশীটভূক্ত ৩নং আসামী রবিউল ইসলামকে ফাঁসি ও তার বাবা ১নং আসামী মিনাজ উদ্দিনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করা হয়।
এছাড়াও অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় খোরশেদ সরদার, বেলুয়া বেগম, পলি ও দেলোয়ার ওরফে দিলুকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়।
আদালতে রাষ্ট্র পক্ষে পিপি এডঃ মোঃ উজির আলী শেখ ও এপিপি এডঃ খোন্দকার হাবিবুর রহমান বাচ্চু এবং আসামী পক্ষে এডঃ মোঃ মোসলেম উদ্দিন খান মামলা পরিচালনা করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!