মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:১৮ অপরাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত বিজয়ের মাস শুরু যমুনা নদীর উপরে বঙ্গবন্ধু রেলওয়ে সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজস্ব বলয় তৈরি করতে মাই ম্যান দিয়ে কমিটি গঠন করা যাবে না : ওবায়দুল কাদের তথ্য সচিব কামরুন নাহারের বিদায়ী সভা অনুষ্ঠিত আরডিএ বিতর্ক কর্মশালা-২০২০॥শিক্ষার্থী রেজিস্ট্রেশন চলছে বাইডেনের বিজয় নিশ্চিত হলে হোয়াইট হাউস ছাড়বেন ট্রাম্প শীঘ্রই ভুয়া অনলাইনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা : তথ্যমন্ত্রী আর্জেন্টাইন ফুটবল কিংবদন্তী দিয়াগো ম্যারাডোনা আর নেই শপথ নিলেন নতুন ধর্ম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রীর কাছে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের পরিচয়পত্র পেশ

যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস কর্তৃক ডিএমপি’র গুলশান অপরাধ বিভাগকে সুরক্ষা সরঞ্জাম প্রদান

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০

॥স্টাফ রিপোর্টার॥ মার্কিন দূতাবাস ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের(ডিএমপি) গুলশান অপরাধ বিভাগকে বাংলাদেশে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্রের অব্যাহত সহায়তার অংশ হিসেবে জরুরী ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) দিয়েছে।
বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার এবং ডিপ্লোমেটিক সিকিউরিটি সার্ভিস রিজিওনাল সিকিউরিটি অফিসের প্রতিনিধিরা গতকাল ১৯শে নভেম্বর পুলিশের অপরাধ বিভাগের ডেপুটি কমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তীর কাছে এসব সুরক্ষা সামগ্রী হস্তান্তর করেন।
এই সুরক্ষা সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে ২হাজার পিস ধুয়ে পুনরায় ব্যবহারযোগ্য মাস্ক, ৪৫০টি মেডিকেল গ্রেড হ্যান্ড স্যানিটাইজার বোতল(২৫০ মিঃ লিঃ) এবং ১হাজার ফেস শিল্ড। যুক্তরাষ্ট্র এসব সামগ্রী বাংলাদেশী কোম্পানীগুলোর কাছ থেকে ক্রয় করেছে।
এগুলো হচ্ছে মার্কিন দূতাবাসের দেয়া সর্বশেষ পিপিই সহায়তা। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর, প্রতিরক্ষা ও কৃষি দপ্তর, ইউএসএইড এবং সেন্টার্স অব ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের মাধ্যমে বাংলাদেশে করোনা মোকাবেলায় ৬৮.৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা দিয়েছে।
বাংলাদেশে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় গুলশান অপরাধ বিভাগ সম্মুখ সারিতে থেকে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এই বিভাগ কোভিড-১৯ এর বিস্তার ঠেকাতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যবিধি ও সুরক্ষা পদক্ষেপ বাস্তবায়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখছে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দূতাবাস জানায়, এই পিপিই সহায়তা সামগ্রী পুলিশকে তাদের দায়িত্ব পালনকালে সুরক্ষা দিতে সহায়ক হবে। এছাড়াও এগুলো বাংলাদেশে অবস্থানরত মানুষকে সুরক্ষা দিবে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গুলশান অপরাধ বিভাগ ও অন্যান্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্য, স্বাস্থ্যকর্মী, কাস্টম কর্মকর্তা, মুদি দোকানদার ও ওষুধ বিক্রেতা, সাংবাদিক ও স্বেচ্ছাসেবীরা প্রতিদিন অসামান্য কাজ করে যাচ্ছেন। তারাই যথার্থ বীর।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!