বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:০৯ অপরাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
করোনা মোকাবেলায় দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পিএসসি’র নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান সোহরাব হোসাইনের শপথ গ্রহণ শীতে করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে, তাই প্রস্তুতি নিন : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রে ১০ই অক্টোবর নাগাদ করোনায় মারা যেতে পারে ২লাখ ১৮হাজার লোক করোনার সংক্রমণ রোধে রাজবাড়ীতে ১৯৯৪ ব্যাচের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ বিশ্ব জুড়ে এক সপ্তাহে কোভিড-১৯ এ মৃত্যুর সংখ্যা অগ্রহণীয় ভাবে বেশি : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে আল্লামা আহমদ শফী’র জানাযাতে লাখ লাখ মানুষের অংশগ্রহণ শ্রীলংকা সফরের জন্য প্রস্তুতি॥ক্রিকেটাদের করোনা পরীক্ষা শুরু জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে অংশ নিচ্ছেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ‘সরকারের গৃহীত পদক্ষেপে পেঁয়াজের বাজারে দাম কমতে শুরু করেছে’

বালিয়াকান্দি বাজারে বন্ধ দোকানের শাটারে টোকা দিলেই মিলছে পণ্য !

  • আপডেট সময় শনিবার, ১৬ মে, ২০২০

॥সোহেল মিয়া॥ রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি বাজারের মার্কেট ও শপিংমলগুলোর প্রতিটি দোকানেই বাইরে থেকে তালা মারা। শুধু কটি শাটারে নেই তালা। আর সেই শাটারে টোকা দিলেই মিলছে চাহিদামত পণ্য। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত এভাবেই লুকোচুরি করে চলছে বেচাকেনা।

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যেই সরকার শর্ত সাপেক্ষে ১০ই মে থেকে সারা দেশের মার্কেট ও শপিংমলগুলো খোলার অনুমতি দেয়। সেই অনুযায়ী ওই দিন থেকে বালিয়াকান্দি বাজারের মার্কেট ও শপিংমলগুলোর দোকানপাটও খোলা হয়। কিন্তু উপচেপড়া ভিড় ও স্বাস্থ্য বিধি না মানায় গতকাল ১৫ই মে থেকে ফের বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়া হয়। কিন্তু এর তেমন কোন প্রভাব পড়েনি। যদিও সকালে বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বাজারে গিয়ে হ্যান্ডমাইক দিয়ে সচেতনতামূলক প্রচারণা ও দোকানপাট বন্ধ রাখার আহ্বান জানান। তা সত্ত্বেও ব্যবসায়ীরা ওইভাবে লুকিয়ে বেচাকেনার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।

বালিয়াকান্দি বাজারের এক কাপড় ব্যবসায়ী বলেন, কী করবো বলেন, দীর্ঘ দেড় মাস হলো ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ। তার উপরে সামনে ঈদ। এ সময়ে যদি বেচাকেনা করতে না পারি তাহলে আমরা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হবো। তবে কাজটি করা যে তাদের ঠিক হচ্ছে না তিনি তা স্বীকার করেন।

বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বলেন, আমরা নিজেরা যদি সচেতন না হই- তাহলে এই করোনা যুদ্ধে কেউ টিকতে পারব না। ব্যাপক সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানোর পরও মানুষের বোধোদয় হচ্ছে না। আইন প্রয়োগ করেও তাদেরকে থামানো কষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর