fbpx
শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
পাংশায় সামাজিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিতকরণে স্থানীয় প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর যৌথ অভিযান করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে গোয়ালন্দে পুলিশের কার্যক্রম পরিদর্শনে অতিরিক্ত ডিআইজি বালিয়াকান্দিতে ভিক্ষুকদের বাড়ী বাড়ী খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিলেন ইউএনও রাজবাড়ীতে উত্তরণ ও মিরা ফাউন্ডেশনের খাদ্য বিতরণ করোনা সন্দেহে পাংশা হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে একজন ভর্তি রাজবাড়ী পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর তিতুর খাদ্য বিতরণ রাজবাড়ী জেলার ৫টি উপজেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে ২৪জনের জরিমানা পাংশায় ভ্রাম্যমান আদালতে ট্রাক ড্রাইভারসহ দুই মোটর সাইকেল আরোহীকে জরিমানা রাজবাড়ী পৌরসভার ৫০ জন পরিচ্ছন্নতা কর্মীর মধ্যে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে রাজবাড়ীর বিভিন্ন বাজারে যৌথ বাহিনীর অভিযান

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে দেশের বৃহত্তম দৌলতদিয়া যৌনপল্লী শাটডাউন

  • আপডেট সময় শনিবার, ২১ মার্চ, ২০২০

॥সোহেল মিয়া॥ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে জন্য গতকাল ২০শে মার্চ সন্ধ্যা ৬টা থেকে ২০দিনের জন্য দেশের বৃহত্তম যৌনপল্লী রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া পতিতালয় বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।
আপাদকালীন চলাকালীন সময় যৌনকর্মীদের খাদ্য নিরাপত্তা হিসাবে প্রত্যেককে ৩০ কেজি চাল ও নগদ ২হাজার করে টাকা প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।
দৌলতদিয়া যৌনপল্লী বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করে রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান,পিপিএম(বার) বলেন, করোনা ভাইরাস থেকে মানুষকে রক্ষা করার জন্য সরকার সব ধরনের জনসমাগম নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় আমরা জেলায় বিভিন্ন সভা-সমাবেশসহ জনসমাগম বন্ধ করেছি।
তিনি বলেন, যৌনকর্মীদের খাদ্যের ব্যবস্থা না থাকায় এই কয়দিন বন্ধ করতে পারিনি। আজ চাল ও নগদ টাকা বরাদ্ধ পাওয়ার বিষয়টি কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করায় আজ শুক্রবার(২০শে মার্চ) সন্ধ্যা ৬টা থেকে সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকার বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে এবং তা বলবদ থাকবে আগামী ৯ই এপ্রিল পর্যন্ত। আগামী ৯ই এপ্রিলের পর পরিবেশ বুঝে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
রাজবাড়ীর ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আশেক হাসান বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দৌলতদিয়া যৌনপল্লী বন্ধ করা ও যৌনকর্মীদের খাদ্য নিরাপত্তার জন্য পুলিশ সুপারের প্রস্তাব আমরা ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কাছে প্রেরণ করি। বিভাগীয় কমিশনার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান মহোদয় আজকে ফোন জানিয়েছেন “দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর বাসিন্দাদের জন্য ৫৪ মেট্রিক টন জিআর চাল ও নগদ ৩৬লক্ষ টাকা বরাদ্দ পাওয়া যাবে। অফিস খোলার পর বরাদ্দের চিঠি রাজবাড়ীতে পৌছালে ২/৩দিনের মধ্যে যৌনপল্লীতে চাল ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হবে।
ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আশেক হাসান আরো বলেন, দৌলতদিয়া যৌনপল্লী বন্ধ করা ও চাল ও নগদ অর্থ সহায়তার বিষয়টি পুলিশ সুপারকে জানানো হয়েছে।
কয়েকজন যৌনকর্মী জানায়, বর্তমানে করোনা ভাইরাসের মতো মরণব্যাধি ছড়িয়ে পড়ায় খরিদ্দারের সমাগম অনেকটা কম। এই রোগ যদি ছড়ায়, তাহলে বাঁচার উপায় নেই। এখন পুলিশ খদ্দেরদের আসা যাওয়া একেবারে বন্ধ করে দিয়েছে। তাঁরা এখন কীভাবে তারা বাঁচবেন, তা নিয়ে উদ্বিগ্ন।
দৌলতদিয়ার যৌনকর্মীদের সংগঠন নারী ঐক্য সংস্থার সভাপতি ঝুমুর বেগম বলেন, পল্লীতে প্রায় ১হাজার ৬০০ নিয়মিত যৌনকর্মী, বয়স্ক মাসিসহ প্রায় ২হাজার বাসিন্দা রয়েছেন। প্রায় ১৩০০ জন যৌনকর্মী ভোটার আছেন। যৌনপল্লীতে প্রবেশের প্রধান ফটক খোলা রেখে বাকি ৫টি ফটক পুলিশের সহযোগিতায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যৌনপল্লীর সব বাড়িওয়ালিকে আজ শুক্রবার থেকে আগামী ৫ই এপ্রিল পর্যন্ত ভাড়া না নিতে বলা হয়েছে। সংগঠনের পক্ষ থেকে যৌনপল্লীতে মাইকিং করে সবাইকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।
দৌলতদিয়া ইউনিয়নের স্থানীয় ৫নম্বর ওয়ার্ড সদস্য আব্দুল জলিল ফকীর বলেন, ‘আমরা দুশ্চিন্তায় ছিলাম কখন কার মাধ্যমে পল্লীতে এই রোগ ছড়িয়ে পড়ে। উপজেলা প্রশাসন থেকে মাইকিং করা হয়।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মোঃ আশিকুর রহমান বলেন, ‘পুলিশ সুপারের নির্দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে আগামী ২০ দিনের জন্য যৌনপল্লীতে খদ্দের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে গতকাল ২০শে মার্চ রাত সাতটা টাঙ্গাইলের যৌনপল্লীও শাটডাউনের নির্দেশ দিয়েছে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসন। এর আগে সন্ধ্যায় ওই যৌনপল্লীতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৩০ কেজির ৫০০ বস্তা চাল বিতরণ করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়, সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ ওয়াহীদুজ্জামানসহ প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!