fbpx
বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ০৪:২৪ অপরাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
রাজবাড়ীর ৪টি হাসপাতালে পিপিই বিতরণ করলেন এমপি পুত্র মিতুল হাকিম ফরিদপুরের সাংবাদিকদের পিপিই দিলেন এমপি ইঞ্জিঃ মোশাররফ রাজবাড়ীতে হিজড়াদের মধ্যে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ লকডাউনে মানবেতর জীবনযাপন করছে খেটে খাওয়া গোয়ালন্দের হতদরিদ্র মানুষ নির্বাচনী এলাকায় ১০ হাজার প্যাকেট খাবার বিতরণ করবেন এমপি কাজী কেরামত আলী বালিয়াকান্দি উপজেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভা কালুখালীতে জেলা পুলিশের তৈরী হ্যান্ড স্যানিটাইজার-মাস্ক বিতরণ রাজবাড়ী পৌরসভা এলাকার কর্মহীন ৩শত পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদান কর্মহীন থাকা দরিদ্রদের মাঝে চন্দনী ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মালেকের খাদ্য বিতরণ বালিয়াকান্দির আদিবাসী পল্লীতে পুলিশের তৈরী মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ

সিঙ্গাপুরস্থ বাংলাদেশের হাইকমিশনে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপিত

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১৯ মার্চ, ২০২০

॥সিঙ্গাপুর প্রতিনিধি॥ বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় এবং যথাযোগ্য মর্যাদায় সিঙ্গাপুরস্থ বাংলাদেশের হাইকমিশনের উদ্যোগে গত ১৭ই মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত হয়েছে।
অনুষ্ঠানমালার শুরুতে হাইকমিশনের হলরুমে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান।
এরপর তিনি আমন্ত্রিত অতিথি এবং দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে নিয়ে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পণ শেষে একই স্থানে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভার শুরুতে দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর প্রেরিত বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। অতঃপর বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন, আদর্শ ও দূরদর্শী নেতৃত্বের উপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।
আলোচনা পর্বে বঙ্গবন্ধুর ঘটনাবহুল রাজনৈতিক জীবনের উপর আলোকপাত করে হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের প্রতিটি সোপানেই বঙ্গবন্ধুর আপোষহীন ভূমিকা তাকে বাংলার মুক্তিকামী মানুষের অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছে। তিনি এই মহান নেতার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, বঙ্গবন্ধু একজন ক্ষণজন্মা নেতা, অসম সাহসী ও দূরদর্শী রাষ্ট্র্রনায়ক ছিলেন। সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশকে সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন বাস্তবায়নে এগিয়ে যাওয়া এবং প্রথম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়ন তাকে ইতিহাসের অন্যতম সেরা রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।
দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে হাইকমিশনের হলরুম দৃষ্টিনন্দন ব্যানার ও রঙিন পোস্টার দ্বারা সজ্জিত করা হয়। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের উপর প্রকাশিত পুস্তক ও চিত্রকর্ম প্রদর্শন করা হয়। বঙ্গবন্ধুর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও দেশের অব্যাহত শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!