মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
পিএসসি’র নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান সোহরাব হোসাইনের শপথ গ্রহণ শীতে করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে, তাই প্রস্তুতি নিন : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রে ১০ই অক্টোবর নাগাদ করোনায় মারা যেতে পারে ২লাখ ১৮হাজার লোক করোনার সংক্রমণ রোধে রাজবাড়ীতে ১৯৯৪ ব্যাচের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ বিশ্ব জুড়ে এক সপ্তাহে কোভিড-১৯ এ মৃত্যুর সংখ্যা অগ্রহণীয় ভাবে বেশি : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে আল্লামা আহমদ শফী’র জানাযাতে লাখ লাখ মানুষের অংশগ্রহণ শ্রীলংকা সফরের জন্য প্রস্তুতি॥ক্রিকেটাদের করোনা পরীক্ষা শুরু জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে অংশ নিচ্ছেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ‘সরকারের গৃহীত পদক্ষেপে পেঁয়াজের বাজারে দাম কমতে শুরু করেছে’ জাপানের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

মেঘালয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের ১৪দিনের যৌথ সামরিক মহড়া সম্প্রীতি-৯ শুরু

  • আপডেট সময় রবিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

॥স্টাফ রিপোর্টার॥ বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ সামরিক মহড়া সম্প্রীতি-৯ ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলং হতে ২৫ কিলোমিটার দূরবর্তী উমরোই সেনানিবাসে গত ৩রা ফেব্রুয়ারী শুরু হয়েছে। এই মহড়াটি আগামী ১৬ই ফেব্রুয়ারী সমাপ্ত হবে।
বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে প্রতিরক্ষা সহযোগিতার অংশ হিসেবে প্রতি বছর উভয় দেশ পর্যায়ক্রমে এই মহড়া আয়োজন করে।
আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর(আইএসপিআর) গতকাল ৭ই ফেব্রুয়ারী সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, এই যৌথ মহড়ায় বাংলাদেশ হতে ১৬৯ জন অফিসার ও সৈনিক এবং ভারত হতে ১৪২ জন অফিসার ও সৈনিক অংশগ্রহণ করছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৪২তম ইনফেন্ট্রি রেজিমেন্ট এবং ভারত সেনাবাহিনীর ২০ বিহার রেজিমেন্ট ১৪ দিনব্যাপী এই সামরিক মহড়ায় অংশগ্রহণ করছে।
উভয় দেশের সেনা সদস্যদের কাউন্টার টেররিজম বিষয়ে প্রশিক্ষিত করা এই যৌথ সামরিক মহড়ার উদ্দেশ্যে। এই মহড়ার সময় ফিল্ড ট্রেনিং এক্সারসাইজ (এফটিএক্স) ও কমান্ড পোস্ট এক্সারসাইজ (সিপিএক্স) এর অনুশীলন করা হচ্ছে। এফটিএক্স ও সিপিএক্স ও অনুশীলনের মাধ্যমে জাতিসংঘের নীতিমালার আওতায় উভয় দেশের সন্ত্রাস বিরোধী কার্যক্রমের উপর বাস্তব অনুশীলন করা হচ্ছে।
এফটিএক্স-এর মাধ্যমে উভয় দেশ একে অপর দেশের বিভিন্ন সংস্থার কাঠামো এবং যুদ্ধ কৌশল বিষয়ে সম্যক ধারণা লাভ করবে। জয়েন্ট ট্রেনিং এক্সারসাইজ-এর মাধ্যমে দুই দেশের সেনাবাহিনী যুদ্ধ ক্ষেত্রের বাস্তব অবস্থা সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে সাহায্য করবে। এছাড়া, দুই দেশের সশস্ত্র বাহিনী এক অপরের যুদ্ধ কৌশল বিষয়ে জানতে পারবে।
ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সামরিক আস্থা ও বিশ্বাস দৃঢ় করতে উভয় দেশ একে অপরের যুদ্ধ কৌশল সম্পর্কে ধারণা লাভ করবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর