মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
পিএসসি’র নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান সোহরাব হোসাইনের শপথ গ্রহণ শীতে করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে, তাই প্রস্তুতি নিন : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রে ১০ই অক্টোবর নাগাদ করোনায় মারা যেতে পারে ২লাখ ১৮হাজার লোক করোনার সংক্রমণ রোধে রাজবাড়ীতে ১৯৯৪ ব্যাচের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ বিশ্ব জুড়ে এক সপ্তাহে কোভিড-১৯ এ মৃত্যুর সংখ্যা অগ্রহণীয় ভাবে বেশি : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে আল্লামা আহমদ শফী’র জানাযাতে লাখ লাখ মানুষের অংশগ্রহণ শ্রীলংকা সফরের জন্য প্রস্তুতি॥ক্রিকেটাদের করোনা পরীক্ষা শুরু জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে অংশ নিচ্ছেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ‘সরকারের গৃহীত পদক্ষেপে পেঁয়াজের বাজারে দাম কমতে শুরু করেছে’ জাপানের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

পিপিএম-সেবা পদক পেলেন রাজবাড়ীর কৃতি সন্তান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মশিউদ্দৌলা রেজা

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২০

॥স্টাফ রিপোর্টার॥ এবারের পুলিশ সপ্তাহ-২০২০ এ চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ থেকে রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক(পিপিএম-সেবা) পেয়েছেন রাজবাড়ীর কৃতি সন্তান ও চট্টগ্রাম উত্তরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা।
পুলিশ সপ্তাহ-২০২০ উপলক্ষে গত ৫ই জানুয়ারী রাজধানী ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পেশাগত কাজে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজাকে প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক (পিপিএম সেবা)-এর ব্যাজ পরিয়ে দেন। এরআগে ২০১৭ সালের পুলিশ সপ্তাহেও তিনি পিপিএম-সেবা পদক পান।
পিপিএম-সেবা পদকে ভূষিত মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা ১৯৭৬ সালের ১৬ই আগস্ট রাজবাড়ী জেলা শহরের ৩নং বেড়াডাঙ্গায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ মোস্তফা আলী ও প্রাক্তন শিক্ষিকা হাসিনা আক্তারের বড় সন্তান।
মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃষি অর্থনীতিতে স্নাতক করার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একই বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। বাংলাদেশ ব্যাংকে সহকারী পরিচালক পদে চাকুরীকালীন সময়ে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রী লাভ করেন। এরপর ২০০৮ সালে মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা ২০০৮ সালে বিসিএস(পুলিশ) ক্যাডারে উত্তীর্ণ হয়ে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন। গত ১১/০৬/২০১৬ইং তারিখ থেকে তিনি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(উত্তর), চট্টগ্রাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করার পর বিভিন্ন দপ্তর/ইউনিটে দায়িত্ব পালনকালীন কর্মদক্ষতা, নিষ্ঠা, একাগ্রতা, বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়েছেন। তার কয়েকটি সফলতার ঘটনা নিচে দেয়া হলো।
আন্তর্জাতিক সোনা চোরাচালান দলের সক্রিয় ২জন সদস্যকে গ্রেফতার ও ৭০ কেজি সোনা উদ্ধার ঃ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তিনি সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সসহ চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী বড় একটি স্বর্ণের চালান আটক এবং জড়িত ২জনকে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারকৃতরা গাড়ীর সিটের নিচে কৌশলে টিনের প্লেট দ্বারা ঢাকা অবস্থায় ৬০০টি স্বর্ণের বার(৬ হাজার ভরি/৭০ কেজি) পাচার করছিল। উদ্ধারকৃত স্বর্ণগুলো আন্তর্জাতিক সোনা চোরাচালানকারীরা শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বাংলাদেশে এনেছিল।
সীতাকুন্ডু থানাধীন কুমিরা জেলে পাড়ায় অবরুদ্ধ পুলিশ অফিসার ও ফোর্সদের উদ্ধার ঃ গত ২০/০৫/২০১৯ইং তারিখে পুলিশের একটি দল সীতাকুন্ডু থানাধীন কুমিরাঘাট এলাকার জেলে পাড়া থেকে মাদক ব্যবসায়ী সন্দেহে ১জনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা পুলিশ সদস্যদের আটক করে রাখে। খবর পেয়ে সীতাকুন্ডু থানার পরিদর্শক(তদন্ত) এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ও ১টি মোবাইল টিম তাদেরকে উদ্ধার করতে গেলে সেখানে পুলিশের সাথে জনতার ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশ ৩৪৫ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে এবং ১০জন পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরে মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের একদল ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।
চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন ও আসামী গ্রেফতার ঃ ২৫/০৭/২০১৯ইং তারিখ বিকালে চট্টগ্রামের বিবিরহাট বাজার থেকে একটি রঙিন টেলিভিশন নিয়ে বাড়ী যাওয়ার পথে ফকিরহাট এলাকা থেকে সাব্বির উদ্দিন ইকন(১৬) নামের এক কিশোর নিখোঁজ হয়। পরদিন ২৬/০৭/২০১৯ইং তারিখে ফটিকছড়ি-খাগড়াছড়ি সড়কের কারবালা টিলা এলাকা থেকে তার জবাই করা লাশ উদ্ধার হয়। মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা ঘটনার ক্লু-উদঘাটন পূর্বক অভিযুক্ত তনয় বড়ুয়া তনা (২৩)কে গ্রেফতার করেন এবং তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক ভিকটিমের ১টি টাচ মোবাইল ফোন ও হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করেন।
অস্ত্র-গুলিসহ ডাকাতি মামলার আসামী গ্রেফতার ঃ সীতাকুন্ডু মডেল থানার ২৫মামলার পলাতক আসামী রোকন উদ্দিন রোকন(৩২) সহযোগীদের নিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতিতালে অভিযান চালিয়ে তাদের সাথে গোলাগুলি করে রোকনের সহযোগী ১২ মামলার আসামী বাবলু, ১১ মামলার আসামী ফাহিম, বারেক ও জাহাঙ্গীর আলমকে ১টি একনলা বন্দুক ও ৩ রাউন্ড কার্তুজসহ গ্রেফতার করেন। এছাড়াও তিনি আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে অনেক ডাকাত ও অন্যান্য অপরাধীদের গ্রেফতার, অস্ত্র ও লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার করেন।
এরআগে ২০১৭ সালের পুলিশ সপ্তাহেও মোঃ মশিউদ্দৌলা পিপিএম-সেবা পদক পান। পুলিশের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সেবা প্রোফাইল, মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ পুলিশ, এটুআই, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হতে প্রথম প্রকাশনা ২০১৫ প্রণয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। এতে জনগণ বাংলাদেশ পরিচিতি, কার্যপরিধি, সাংগঠনিক কাঠামো, সেবা পদ্ধতি, সেবা প্রদানের সময়-স্থান সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা পায়।
তিনি ইসলামী ছাত্র শিবিরের কেন্দ্রীয় কমিটি, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও এর আশপাশের সকল কমিটির তালিকা, তাদের ই-মেইল, অর্থনৈতিক কর্মকান্ডের তথ্য উদঘাটন করে পুস্তিকা প্রকাশ করেন। ফলে জামাত-শিবিরের সাথে সম্পৃক্তদের বিরুদ্ধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ ও সারা দেশে জঙ্গী দমন সহজ হয়।
তার নেতৃত্বে ২০১৬ সালের ১৭ই আগস্ট চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী হলগুলোতে অভিযান চালানোর সময় ইসলামী ছাত্রী সংস্থার কেন্দ্রীয় কমিটি ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির তালিকা উদঘাটন করা হয়। এ ব্যাপারে সরকারকে অবহিত করার পরপরই সরকার সারা দেশে ইসলামী ছাত্রী সংস্থাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে।
তিনি অভিযান চালিয়ে জঙ্গী তৌহিদুল আলম মানিককে সীতাকুন্ডু থানার মামলা নং-১৮(৭)১৬, ধারাঃ সন্ত্রাস বিরোধী আইন ২০০১(সংশোধনী) ২০০৩ মূলে গ্রেফতারে সক্ষম হন। তার কাছ থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যায়, যা চট্টগ্রাম জেলায় জঙ্গী নির্মূলে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।
এছাড়াও ০৪/০৮/২০১৬ইং তারিখে তার নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে ৩জনকে ৪টি দেশী অস্ত্র, ১টি এয়ারগান, গুলি-কার্তুজসহ বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়। দীর্ঘ ১২দিন অভিযান চালিয়ে হাটহাজারী থানার মামলা নং-১৪(০১)১৬, ধারাঃ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০(সংশোধিত ২০০৩) এর ৭/৩০-এর ভিকটিম সোয়েব আক্তার আপন (১১)কে উদ্ধার এবং অপহরণকারী অপু দাশ, বিপ্লব নাথ, সোহেল, নূরউদ্দিন ও ওসমানকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।
মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজার উল্লে¬খিত প্রশংসনীয় বিভিন্ন কার্যক্রমের ফলে জনগণের কাছে পুলিশের ভাবমূর্তি উজ্জল হয়েছে। তার নিরলস প্রচেষ্টা, পরিশ্রম, নিষ্ঠা ও সাফল্যের স্বীকৃতি স্বরূপ এবারের পুলিশ সপ্তাহে তাকে ‘রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম)-সেবা’ পদকে ভূষিত করা হয়।
রাজবাড়ীর কৃতি সন্তান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক(পিপিএম-সেবা) পাওয়ায় রাজবাড়ীবাসী তাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর