বৃহস্পতিবার, ০৬ অগাস্ট ২০২০, ০৮:০০ অপরাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন কামাল বেঁচে থাকলে দেশকে অনেক কিছু দিতে পারতো : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিনহা হত্যাকান্ডে তদন্তে যাদের নাম আসবে তাদের সবাইকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে : যৌথ সংবাদ সম্মেলনে দু’বাহিনী প্রধান বৈরুত বন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণে ৪জন বাংলাদেশী নিহত : আহত ১০০ জন করোনা মহামারির মধ্যে অর্থনৈতিক ধস বিশ্বে সহিংসতা আরো বাড়িয়ে দেবে : জাতিসংঘ পুলিশের গুলিতে নিহত সাবেক মেজর সিনহার মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন : দায়ী ব্যক্তিদের বিচারের আশ্বাস জরুরী প্রয়োজন ছাড়া রাত ১০টার পর বাইরে না যাওয়ার নির্দেশনা॥দোকানপাট রাত ৮টার মধ্যে বন্ধের নির্দেশ স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে রাজবাড়ীর মিজানপুর ইউনিয়নে ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত॥প্রশাসন নীরব! বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা বাড়াতে বিশ্ব ব্যাংকের ২০ কোটি ২০ লাখ ডলার অনুমোদন বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের জনগণ সব সম্ভাবনা হারিয়ে ফেলে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

গণপরিবহনে নারীর নিরাপদ যাতায়াত নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে —মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা

  • আপডেট সময় শনিবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২০

॥স্টাফ রিপোর্টার॥ মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এমপি বলেছেন, ‘গণপরিবহনে নারীর নিরাপদ যাতায়াত নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে প্রতিটি রুটে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। গণপরিবহনে এসব ভ্রাম্যমান আদালতের ফোন নম্বর ও যোগাযোগের ঠিকানা থাকবে। পর্যায়ক্রমে সকল গণপরিবহনে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে।’
গত ৯ই জানুয়ারী রাজধানী ঢাকার সিরডাপ মিলনায়তনে ‘গণপরিবহনে নারীর নিরাপদ যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়ন’ শীর্ষক কর্মশালার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা বলেন, সরকার নারীর ক্ষমতায়ন উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। নারী উন্নয়নে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে রোল মডেল। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে নারীর ব্যাপক কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু কর্মস্থলে যাতায়াতের পথে নারীরা বিভিন্নভাবে নির্যাতিত হচ্ছে এবং তারা মানসিকভাবে ভেঙে পড়ছে। এটা এখনই বন্ধ করতে হবে। নারী নির্যাতন বিষয়ে আমাদের কোন গবেষণা বা জরীপ নেই, তবে বর্তমানে গণমাধ্যম নারী নির্যাতনের প্রকৃত চিত্র তুলে ধরছে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, নীতি-নৈতিকতা বিবর্জিত, বিকৃত মস্তিষ্ক ও মানসিকতার অধিকারীরাই নারী নির্যাতনকারী ও ধর্ষণকারী। তাদের বিরুদ্ধে নারী সমাজকে প্রতিবাদী হতে হবে। নারী নির্যাতন ও নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ এবং ইভটিজিংয়ের বিরুদ্ধে দেশে আইন রয়েছে। আইনের কার্যকর প্রয়োগের পাশাপাশি সন্তানদের পরিবার থেকে নীতি-নৈতিকতা ও মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন করে গড়ে তুলতে শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ পিতা-মাতা ও অভিভাবকদের এগিয়ে আসতে হবে।
মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং দীপ্ত ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এই কর্মশালার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য অ্যারোমা দত্ত এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মুঃ মহসিন চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কর্মসূচী পরিচালক মোঃ ইয়ামিন খান।
সরকারের অর্থায়নে কর্মসূচীটি বাস্তবায়ন করবে বেসরকারী সংস্থা দীপ্ত ফাউন্ডেশন। দীপ্ত ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক জাকিয়া হাসান তার উপস্থাপনায় বলেন, এ বছর ৫০টি এবং পরবর্তীতে ১৫০টি গণপরিবহনে স্থাপিত সিসি ক্যামেরা কেন্দ্রীয়ভাবে সার্ভারের সাথে সংযুক্ত থাকবে এবং একই সাথে আ্যপসের সাথেও যুক্ত থাকবে। কর্মসূচীটি ৪টি এলাকায় বাস্তবায়িত হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর