fbpx
শনিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২০, ০৪:৪২ অপরাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
রাজবাড়ীর পাংশায় দুগ্ধ শীতলীকরণ কেন্দ্রের উদ্বোধন গোয়ালন্দ আব্দুল হালিম মিয়া কলেজের প্রশাসনিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন চীনের করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষায় আমাদের করণীয়- রাজবাড়ী থানা পুলিশের পৃথক অভিযানে ৪জন মাদক বিক্রেতাসহ ৭জন গ্রেফতার কালুখালীতে নানা আয়োজনে ছাত্রলীগের জন্মদিন পালিত রাজবাড়ী সদরের রামচন্দ্রপুর থেকে গাঁজাসহ বিক্রেতা সুমন গ্রেফতার ফরিদপুর পৌরসভায় ডিজিটাল পদ্ধতিতে সেবা প্রদানের বিষয়ে অবহিতকরণ সভা গোয়ালন্দে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির পরিচিতি সভা ফরিদপুরের ভাটিলক্ষ্মীপুর দরবার শরীফে বাৎসরিক ওরশ অনুষ্ঠিত রাজবাড়ীতে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে লেখা বই পুরস্কার হিসেবে পেল ছাত্রীরা

রাজবাড়ীতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ‘মুজিববর্ষ কর্ণার’ উদ্বোধন

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৯ জানুয়ারী, ২০২০

॥আসহাবুল ইয়ামিন রয়েন॥ স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপন উপলক্ষে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গতকাল ৮ই জানুয়ারী সকালে ‘মুজিববর্ষ কর্ণার’-এর উদ্বোধন এবং বর্ষব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচী সংক্রান্ত প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।
বেলা ১১টায় জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম তার কার্যালয়ের ২য় তলার একটি কক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে ফিতা কেটে ‘মুজিববর্ষ কর্ণার’-এর উদ্বোধন করেন। সেখানে বঙ্গবন্ধুর দুর্লভ কিছু ছবিসহ ফটোগ্যালারী, বঙ্গবন্ধুর উপর লিখিত ৫০টি বই ও বসার জায়গা রয়েছে।
এরপর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে মুজিববর্ষের বর্ষব্যাপী কর্মসূচী সংক্রান্ত প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগমের সভাপতিত্বে প্রেস ব্রিফিং-এ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) মোহাম্মদ আশেক হাসান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও রাজবাড়ী সরকারী কলেজের সাবেক উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ফকরুজ্জামান মুকুট, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আবুল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মহসীন উদ্দিন বতু, যুদ্ধকালীন কমান্ডার বাকাউল আবুল হাসেম বাকাউল, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হেদায়েত আলী সোহ্রাব, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক মাতৃকণ্ঠের সম্পাদক খোন্দকার আব্দুল মতিন, রাজবাড়ী রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মোঃ ইউসুফ মিয়া ও ডিবিসি টেলিভিশনের প্রতিনিধি দেবাশীষ বিশ্বাস প্রমুখ আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।
এ সময় জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার উপ-পরিচালক মোঃ বাকাহীদ হোসেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মোবাশ্বের হোসেন, জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআই’র উপ-পরিচালক মোঃ শরিফুল ইসলাম, এনডিসি মোঃ রফিকুল ইসলাম, জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনারগণ এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।
মুজিববর্ষ কর্ণারের উদ্বোধন অনুষ্ঠান ও প্রেস ব্রিফিং-এ জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, ‘তাঁর ত্যাগ ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণেই আমরা বিশ্বের বুকে স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছি। আজ আমরা আমাদের সেই জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকীর সন্নিকটে এসে পৌঁছেছি। পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত হওয়ার পর ’৭২-এর ৮ই জানুয়ারী বঙ্গবন্ধুকে পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়। বঙ্গবন্ধুর মুক্তি পাওয়ার দিনটি বিবেচনায় রেখে আজকে ‘মুজিববর্ষ কর্ণার’-এর উদ্বোধন করা হলো। আগামী ১০ই জানুয়ারী বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের দিন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে মুজিববর্ষের জন্মশতবার্ষিকীর কাউন্ট ডাউন(ক্ষণ গণনা) উদ্বোধন করবেন। অনুষ্ঠানটি বড় পর্দার মাধ্যমে কালেক্টরেটের আম্রকানন থেকে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। উক্ত অনুষ্ঠানে জেলা পর্যায়ের সকল সরকারী-বেসরকারী দপ্তরের প্রধান, জণপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও জেলার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীগণকে বিকাল ৩টায় উপস্থিত থাকতে অনুরোধ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর ক্ষণগণনার উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমী ও শিশু একাডেমীর শিল্পীদের পরিবেশনায় বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। রাজবাড়ীর সকল উপজেলায় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক মুজিবর্ষের ক্ষণগণনার উদ্বোধন অনুষ্ঠানটি বড় পর্দায় প্রদর্শন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য সকল উপজেলা প্রশাসনকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, মুজিববর্ষের জাতীয় ও জেলা পর্যায়ের মূল অনুষ্ঠান ১৭ই মার্চ জাতির পিতার জন্মদিন থেকে শুরু হয়ে ২০২১ সালের মার্চ মাসে সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধমে শেষ হবে। বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে জেলার প্রতিটি সরকারী-বেসরকারী বিভাগ তাদের চলমান কার্যক্রমের মধ্যেই বিশেষ কিছু করে উদযাপন করবে। যেহেতু ১৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ছাড়াও জাতীয় শিশু দিবস সেই জন্য শিশুদের জন্য বিশেষ কিছু করার পরিকল্পনা জেলা প্রশাসন গ্রহণ করেছে। তার ধারাবাহিকতায় রাজবাড়ী পৌরসভার শিশু পার্কটি জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ঠিক করা হচ্ছে। মুজিববর্ষ উপলক্ষে উদ্বোধনের মাধ্যমে সেখানে শিশুদের নিয়ে জেলা প্রশাসন মুজিববর্ষের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে। এছাড়াও স্বাস্থ্য বিভাগসহ জেলার সকল সরকারী বিভাগে জনসাধারণের জন্য বিশেষ সেবা প্রদান করবে। এই মুজিবর্ষের সকল অনুষ্ঠানের সমন্বয় করবে জেলা প্রশাসন।
জেলা প্রশাসক বলেন, বঙ্গবন্ধু যেহেতু রাজবাড়ীর মাটিতে পা রেখেছেন এবং বাই-সাইকেলে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে বেরিয়েছেন সেহেতু তার সেই স্মৃতিকে স্মরণ করার জন্য বিশেষ কিছু আয়োজন করা হবে। এছাড়াও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে সারা বছরব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। মুজিববর্ষ উপলক্ষে জেলার প্রতিটি অনুষ্ঠান যাতে সুন্দরভাবে আয়োজন করা যায় সেই জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে সঙ্গে নিয়ে জেলা প্রশাসন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। যদি অনুষ্ঠান সম্পর্কিত কারো কোন পরামর্শ থাকে তাহলে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।’
প্রেস ব্রিফিং-এ আরও জানানো হয়, জাতীয় কর্মসূচী ছাড়াও রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন জেলা পর্যায়ের বর্ষব্যাপী মুজিববর্ষের কর্মসূচী (যা জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির নির্দেশনার প্রেক্ষিতে সংশোধনযোগ্য) গ্রহণ করেছে। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে-আগামী মার্চ মাসে জেলা প্রশাসন কর্তৃক রাজবাড়ী পৌরসভার বেড়াডাঙ্গা ৩নং সড়কের সংস্কারকৃত শিশু পার্ক সকলের জন্য চালু করা, মাসব্যাপী বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতা মেলার আয়োজন, সাড়ম্বরে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন, ১৪ই এপ্রিল বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে বৈশাখী মেলা, মে ও জুন মাসে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে মাসব্যাপী আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, জুলাই মাসে ১৫দিনব্যাপী বৃক্ষমেলা ও মাসব্যাপী গাছের চারা রোপণ, আগস্ট মাসে যথাযোগ্য মর্যাদায় ও শোকাবহ পরিবেশে জাতীয় শোক দিবস পালনসহ মাসব্যাপী কর্মসূচী পালন, সেপ্টেম্বর মাসে মাসব্যাপী বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন, অক্টোবর মাসে মাসব্যাপী বঙ্গবন্ধুর উপর রচনা, চিত্রাঙ্কন, বঙ্গবন্ধুর ভাষণ ও বই পড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন, নভেম্বর মাসে মাসব্যাপী বঙ্গবন্ধু ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন, ডিসেম্বর মাসে ১৫দিনব্যাপী বিজয় মেলা ও ১৬ই ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস পালন, ২০২১ সালের জানুয়ারী মাসে বই উৎসব ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, ফেব্রুয়ারী মাসে অমর একুশে বই মেলার আয়োজন ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন এবং মার্চ মাসে জাতির পিতার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর সমাপনী অনুষ্ঠান।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!