fbpx
শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২০, ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
গোয়ালন্দে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করলেন এমপি কাজী কেরামত আলী পিপিএম-সেবা পদক পেলেন রাজবাড়ীর কৃতি সন্তান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মশিউদ্দৌলা রেজা রাজবাড়ীতে বিভিন্ন দাবী আদায়ে কর্মবিরতিতে যাচ্ছে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কর্মচারীরা রাজবাড়ী পৌরসভায় ঠিকাদারী কাজের বিল আটকে রাখার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে কুয়াশায় আবারও দুই ঘন্টা ফেরী বন্ধ॥দুর্ভোগ দৌলতদিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে ফেন্সিডিলসহ বিক্রেতা গ্রেপ্তার যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সিতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত নিউইয়র্কে বাংলাদেশী আমেরিকানদের তিন সংগঠনের বর্ষবরণ ও বার্ষিক নৈশভোজ অনুষ্ঠান রাজবাড়ী গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীকে বিদায়ী সংবর্ধনা কালুখালীতে আন্তঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্রীড়া-সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা সমাপ্ত

ফরিদপুরে মাদক মামলার সাক্ষী হওয়ায় একই পরিবারের ৪জনকে কুপিয়ে জখম

  • আপডেট সময় বুধবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৯

॥মাহবুব হোসেন পিয়াল॥ মাদক মামলার সাক্ষী হওয়ায় ৩বছরের একটি শিশুসহ একই পরিবারের ৪জনকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। আহতদের একজনের অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
গত ২রা ডিসেম্বর রাতে ফরিদপুর সদর উপজেলার আলিয়াবাদ ইউনিয়নের ভাজনডাঙ্গা আদর্শ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আহতরা হলো ঃ ভাজনডাঙ্গা আদর্শ গ্রামের দিন মজুর তারা ফকিরের স্ত্রী রহিমা বেগম(৬০), ছেলে মহসিন ফকির(৩৫), নাতি শিপন ফকির(৩) ও চায়ের দোকানী লাবলু চৌধুরী(৫০)। ঘটনার পর তাদেরকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের মধ্যে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাথা ও মুখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হওয়া মহসিন ফকিরের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
মহসিন ফকিরের ভাই মতি ফকির জানান, তাদের এলাকার ইসমাইল মল্লিকের স্ত্রী মর্জিনা বেগম(৫০) দেড় মাস আগে মাদকসহ গ্রেফতার হয়ে গত ১লা ডিসেম্বর জামিনে মুক্তি পায়। এর আগেও সে এক কেজি গাঁজাসহ র‌্যাবের হাতে আটক হয়েছিল। এসব ঘটনায় ফরিদপুর কোতয়ালী থানায় দায়েরকৃত মাদক মামলায় সাক্ষী হওয়ায় তারা আমাদেরকে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়ে আসছিল।
ফরিদপুর কোতয়ালী থানার এস.আই শামীম হোসেন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।
তিনি জানান, মাদক মামলার আসামী মর্জিনা ও হামলায় আহত রহিমা আপন দুই বোন। মর্জিনার মাদক মামলায় সাক্ষী হওয়া হামলার একটি কারণ হলেও তাদের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধও রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!