বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:০৯ অপরাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যা মামলায় রাজবাড়ীর ইফতি মোশারফসহ ২৫জনকে অভিযুক্ত চার্জশীট দাখিল মীর মশাররফ হোসেন আমৃত্যু বাংলা ভাষায় সাহিত্যের সেবা করে গেছেন —বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী সপ্তাহ ব্যাপী আয়কর মেলা শুরু হচ্ছে আজ মুজিববর্ষ উদযাপনে রাজবাড়ীতে ডিজিটাল ক্ষণগণনা যন্ত্র স্থাপনের জন্য স্থান নির্ধারণ গোয়ালন্দে ছোট ভাকলায় অগ্নিকান্ডে চানাচুর মামা-ভাগ্নে ফ্যাক্টরীর ১০ লক্ষ টাকার সম্পদ পুড়ে ছাই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ফরিদপুরের ৩টি উপজেলার শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী দৌলতদিয়া রেল স্টেশন এলাকা থেকে ফেন্সিডিলসহ ১জন গ্রেপ্তার র‌্যাবের অভিযানে ভাঙ্গা থেকে ইয়াবাসহ বিক্রেতা গ্রেফতার গোয়ালন্দের নুরুন্নবী রাসেলের ইন্তেকাল রাজবাড়ী-২ আসনের এমপি জিল্লুল হাকিম ও তার পুত্র মিতুল এবারও জেলার সেরা করদাতা

কহন জানি দম ফুরাইয়া হাওয়ার পাখিডা উইড়া যায়———–কাঙালিনী সুফিয়া

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯

॥পান্থ আফজাল॥ বাউল সম্রাজ্ঞী কাঙালিনী সুফিয়া। অসংখ্য শেকড়ের গন্ধমাখা গানের ফেরীওয়ালা, কালজয়ী লোক-সঙ্গীত রচয়িতা, সুরকার ও গায়ক এই গুণী লোকশিল্পী। রেডিও, টিভি, শিল্পকলাসহ বিভিন্ন প্লাটফর্মে গান গাইতে গাইতে কাঙালিনী হয়ে বাউল অঙ্গনের একজন জীবন্ত কিংবদন্তী। এখনো মানুষের মুখে মুখে ঘুরে তার লেখা ও গাওয়া জনপ্রিয় গানগুলো।
প্রখ্যাত এই গুণী বাউল শিল্পী রোগে-দারিদ্রে বয়সের তুলনায় অনেকখানি বুড়িয়ে গেছেন এখন। অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না। মরতে বসেছেন একরকম বিনা চিকিৎসায়। সম্প্রতি একান্ত সাক্ষাতকারে কাঙালিনী সুফিয়া তুলে ধরেছেন তার জীবনের নানা বাঁকের কথা।
কেমন আছেন ঃ শরীরডা বালা না। শরীরডা খালি টলে। সুস্থ না। মাতায় সমস্যা, কিডনী ও হার্টের সমস্যা। টাকার অভাবে তার সঠিক চিকিৎসা করাতে পারছি না। কহন জানি দম ফুরাইয়া হাওয়ার পাখিডা উইড়া যায় !
ডাক্তার দেখাচ্ছেন না ঃ দেহাইছি তো। ঐজন্যি এট্টু চলতি-ফিরতি পারতেছি। তয় সারাক্ষণ শরীরডার মধ্যি ক্যামন জানি করে ! বুঝি না।
শুনেছিলাম আর্থিক অবস্থাও খারাপ। অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না ঃ হ, ট্যাহা-পয়সাও তো হাতে নাই যে চিকিৎসে করাবো। এহন চাইয়া-চিন্তায় দিন কাটাই।
রাষ্ট্রীয়ভাবে আর্থিক সহায়তাও তো পেয়েছিলেন। সেটা দিয়ে কি চলে না ঃ আরেকটু এইগ্যা আসলি বালো হয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওনেক শিল্পীদের বা ওনেক মানষের সাহায্য কোরচে। এহেক জনের ২০ লাক, ১০ লাক বা ৩০ লাক করি দিছে। আবার একুশে পদক দিছে। আমি তো শিল্পী কাঙালিনী সুফিয়া; আমি তো একুশে পদক পাই নাই শেখ হাসিনার হাত থেইক্যা।
কিছুদিন আগে ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আপনাকে ২লক্ষ টাকা দেবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ঃ হ, মেয়র সাব সবার সামনে আমাকে ২লক্ষ ট্যাহা দেবার ঘোষণা দিয়েছিল। এহন দেহা যাক, কবে ট্যাহাডা হাতে পাই!
তাহলে তো অনেক আক্ষেপ রয়েছে যে, আপনাকে সঠিকভাবে এখনো সম্মান বা মূল্যায়ন করা হয়নি ঃ হ, তা তো আছেই! অপেখ্যায় আছি, এই অবস্থা শুইন্যা যেন প্রধানমন্ত্রী আমারে ডাইক্যা নেয়। ডাইক্যা নিয়া আমার মাতায় হাত বুলাইয়া দেয়, কিচু অনুদান দেয়। আমি যেন একুশে পদক পাই। মৃত্যুর আগে এই সম্মানটুকু চাই (অশ্রুসিক্ত নয়নে)।
প্রধানমন্ত্রীর কাছে আপনার এহন আর কি চাওয়া ঃ আমি এহনো গান করতি চাই। কিন্তু বয়স তো আর কম হইলো না। হাঁটতে পারি না। এক জাইগ্যা থাইক্যা আরেক জাইগ্যায় চলতি পারি না। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ, আমারে বিভিন্ন জাইগ্যা ঘুইরা ঘুইরা গান করবার লাইগ্যা একটা গাড়ী বা ২০ লক্ষ টাহা দেয়। কিচু একডা করি দিক, বাঁইচা থাকবার জন্যি। আর বহুদিনের ইচ্ছা কুষ্টিয়ায় ‘কাঙালিনী সুফিয়া একাডেমী’র। হেইডা যদি করতো, মইরা গিয়াও শান্তি পাইতাম! এহনো সাভার জামসিংয়ের জমির সাড়ে ৯ লক্ষ টাহার ঋণ মাতায় লইয়া পালাইয়া বেড়াই। কি যে করমু, বুঝবার পারতেছি না।
রাষ্ট্রীয়ভাবে এর আগে কতটুকু অনুদান পেয়েছেন ঃ রাষ্ট্রীয়ভাবে কিছু সাহায্য পাইছিলাম। আর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর পক্ষ থাইক্যা মহামান্য রাষ্ট্রপতির হাত থাইক্যা আমারে কিছু অর্থ ও সম্মাননা দিছে। এই দিয়া তো কিছুই হচ্ছি না। এহন অর্থের ওভাবে কিচুই করতি পারছি না। প্রধানমন্ত্রীর দেয়া মাসিক ১০ হাজার টাহায় তো সংসারই চলে না, চিকিৎসা করাব কী দিয়া? নুন আনতি পানতা ফুরায় আমার, ওষুধ কিনবো কি দিয়া? টাহার অভাবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করাতি পারছি না। ধার-দেনা কইরা চলতেছে আর কি !
জীবনে অনেক কালজয়ী গান লিখেছেন- গেয়েছেন। সেইসব গান আবার অনেকেই গেয়ে লাভবান হচ্ছে। এইসব গানে আপনি কি রয়্যালটি পান ঃ তা তো পাই না বাপু! অনেক মানষেই আমার গান গায়। আমার ছবি তুলে মোবাইলে নেয়। হেইগুলা ব্যবহার করে। অনেক কম্পানিও আমার গান অন্যের দিয়া গাওয়ায়। যা লাব, সবই তো কম্পানি পায়, আমার তো কুন লাব হয় না। হেরা আমার গান ইউটিউবে দেয়, অন্যের দিয়া গাওয়ায়। কই আমার কাছ থাইক্যা তো কুন অনুমতি নেয় না। টাহা পয়সাও তো কিচুই দেয় না আমারে। কিচু দিলেও চিকিৎসা করাইতে পারতাম। এরা যদি কিচু দিত, তাইলে তো আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাচে হাত পাততাম না।
আপনার গান অন্য শিল্পী গাইছে, ফিউশন করছে। এটা কি ঠিক হচ্ছে ঃ ঠিক তো হচ্ছে না। একজন শিল্পীর গান আরেকজন নকল কইরা গাইছে-এইডা তো বালা না। সে তো ঠিকঠাক মতো গাইতেও পারচে না।
কাঙালিনী উপাধি কে দিয়েছেন ঃ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর তহনকার ডিজি মোস্তফা সাহেব(মুস্তফা মনোয়ার) আমারে এই উপাধি দেন।
কত বছর ধরে গান করছেন ঃ হেইডা তো মনে নাই। মাতা কাজ করে না। এহন তো বুড়ি হইয়া গেছি। তয় ১৪ বছর বয়স থাইক্যা আমি গান করি। আর রাজবাড়ী জেলায় আমার জন্ম।
রাজবাড়ীতে তো বসত বাড়ী আছে আপনার ঃ রাজবাড়ীতে থাকার জায়গা পাইছিলাম। হেই সময় রাজবাড়ীর ডিসি কল্লোল সাহেব ছিলেন(বর্তমানে অতিরিক্ত সচিব হাসানুজ্জামান কল্লোল)। তিনি আমার থাকার জন্যি জায়গার বন্দোবস্ত কইরা দিছিলেন। আর আরেকজন বাড়ী-ঘর কইরা দিছিলো; কিছু ঠেহাও পাইছিলাম।
নিজ এলাকা থেকে কি কোন সম্মাননা পেয়েছেন ঃ তেমন করি তো কেউ মূল্যায়ন বা সম্মাননা দিল না কো! কেউ তো ডাকলিও না কোনদিন। আসলে দ্যাশের মাইয়া তো, দ্যাশের মূল্যায়ন পায় না(আক্ষেপ)।
সাভারেও তো থাকেন ঃ সাভারেও থাকি। আবার রাজবাড়ীতেও। কুষ্টিয়াতে থাকি, সেখানে অল্প এট্টু থাকার যাইগা আছে।
শুনেছি কুষ্টিয়াতে আপনার জমি বেদখল হয়ে আছে ঃ হ, এহানে ১৮ শতাংশ জমি পাইছিলাম। লালন সাঁইজির অনুষ্ঠান (ছেঁওড়িয়া) যেখানে অয়(স্টেইজ)। সেহানের জমি এহনও দখলে পাইনি। বেদখল করে সেহানে টয়লেট বানাইছে। জমি আমারে বুঝাইয়া দিচ্ছে না। ভূমি মন্ত্রণালয়ে অনেকবার গিছি, কাজ তো কিচুই হচ্ছি না! রাষ্টীয়ভাবে হুনি শিল্পীদের অনেক থাকার জাইগা দেয়, আমি তো পাচ্ছি না।
লালন সাঁইজির গান কি সবাই ঠিকমতো গাইতে পারছে ঃ কিবাবে কবো! সবাইরে মূল্যায়ন করবার চাই না।
কুষ্টিয়ার ছেঁউড়িয়ায় লালন সাঁইজির ১২৯তম তিরোধানে গান করেছিলেন। কয়টায় স্টেইজে উঠেছেন?
আমারে দেরীতে দিছিলো। খালি কইবার লাগছিল, ‘পরে পরে’। আমি তহন ডিসি সাহেবের কাছে যাবার লাগছিলাম। হেরপর তারা ভয় পাইয়া আমারে স্টেইজে উঠায়। তহন রাত ১২ডা হইবো। গান তো দুইডা গাইছিলাম। আমার মেয়ে পুষ্পও সেহানে ছিল। আমি মরি যাবার পর আমার মাইয়াই সব পরিচালনা করবো। তাই সবসময় আমার সঙ্গে সঙ্গে থাকে।
অনেক বয়স হয়েছে আপনার। এখনো কি নিয়মিত গান গাইতে চান ঃ গানইতো আমারে বাঁচাইয়া রাখছে। আমি বাবরার মঞ্চে ফিরবার চাই। নিয়মিত গান গাইবার চাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!