সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
ভারতে রেকর্ড সংখ্যক লোক করোনায় সংক্রমিত মিশরে বালুর নিচে সাড়ে ৩ হাজার বছরের বেশী প্রাচীন নগরীর সন্ধান বিশ্বব্যাপী ১দিনে করোনায় নতুন করে ৬ লাখ ৬৭ হাজার আক্রান্ত আর্জেন্টিনায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় কারফিউ ঘোষণা পহেলা বৈশাখে জনসমাগম করা যাবে না : সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় বিশ্ব ব্যাংকের কাছে ৫০০ মিলিয়ন ডলার বাজেট সহায়তা চেয়েছে অর্থমন্ত্রী কামাল আসন্ন পবিত্র রমজান মাসে অফিসের সময়সীমা পুননির্ধারণ করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারী নির্দেশনা বাস্তবায়নে মাঠ পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তাদের আইজিপির নির্দেশ আজ থেকে শুরু হচ্ছে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ ২৬শে মার্চকে বাংলাদেশ দিবস ঘোষণা করেছেন ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র

রাজবাড়ীতে পিআইবি’র আয়োজনে সাংবাদিকদের জন্য ২টি প্রশিক্ষণ কর্মশালা শুরু

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৮ আগস্ট, ২০১৮

॥আসহাবুল ইয়ামিন রয়েন॥ বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট (পিআইবি)’র আয়োজনে ও রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সহযোগিতায় গতকাল ২৭শে আগস্ট সকালে অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিং এবং শিশু ও নারী উন্নয়ন বিষয়ক ২টি প্রশিক্ষণ কর্মশালা রাজবাড়ী সার্কিট হাউজে শুরু হয়েছে।
প্রধান অতিথি হিসেবে কর্মশালার উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম-সেবা এবং পাংশা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ এটিএম রফিক উদ্দিন।
রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি খান মোঃ জহুরুল হকের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পিআইবি’র সমন্বয়কারী জিলহাস উদ্দিন নিপুন এবং প্রশিক্ষক হিসেবে বক্তব্য রাখেন পিআইবি’র সিনিয়র প্রশিক্ষক রাফিজা রহমান। অনুষ্ঠানে সার্বিক বিষয় পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেন রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক মাতৃকণ্ঠের সম্পাদক খোন্দকার আব্দুল মতিন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী বলেন, বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট(পিআইবি) সাংবাদিকদের পেশাগত উৎকর্ষতা সাধনের জন্য প্রশিক্ষণের আয়োজন করে। যা সাংবাদিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। যে কোন মানুষের শেখার যেমন শেষ নাই, তেমনি পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণের কোন বিকল্প নাই। বয়সের ফ্রেমে এটাকে আটকে রাখা যায় না। পিআইবি সবসময় সাংবাদিকদের পেশাগত উৎকর্ষতার জন্য সারা বাংলাদেশে নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় পূর্বের ন্যায় আজকেও তারা রাজবাড়ীর সাংবাদিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য এই প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছে। যার মাধ্যমে আজকে উপস্থিত সাংবাদিকরা অনুসন্ধানমূলক এবং শিশু-নারীদের রিপোর্টিংয়ের ক্ষেত্রে যে সমস্ত বিষয়ে স্পেশালিটি মেইনটেইন করতে হয়, সেটা শিখতে পারবেন। আমি আশা করি প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকরা তাদের পেশাগত দক্ষতা ও প্রশিক্ষণলদ্ধ জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে ভবিষ্যতে আরও বস্তুনিষ্ঠ ও গঠনমূলক সংবাদ পরিবেশন করতে পারবেন। সাংবাদিকদের অবশ্যই এমন সংবাদ পরিবেশন করতে হবে যা সর্বজন গ্রহণযোগ্য হয়। আর সেই জন্য যে কোন সংবাদ পরিবেশনের আগে তার তথ্য-উপাত্ত ঠিক আছে কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে সংবাদ পরিবেশন করতে হবে। তবেই সাংবাদিকদের সকলে সমীহ করবে কিন্তু ভয় পাবে না।
তিনি বলেন, বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডসহ যেসব ক্ষেত্রে ব্যর্থতা ও ভালোমন্দ রয়েছে সাংবাদিকরাই তা তুলে ধরেন। আর সেই জন্যই রাষ্ট্রের চতুর্থ অলিখিত স্তম্ভ হিসেবে সাংবাদিকদের বিবেচনা করা হয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেশের প্রধানমন্ত্রীসহ উচ্চ পর্যায়ের যারা দায়িত্বপ্রাপ্ত রয়েছেন তারা সকলেই দিনের শুরুতে সংবাদপত্রের মাধ্যমে কি কি ক্ষেত্রে কাজ করতে হবে বা কোন কাজটি ঠিকমতো হচ্ছে বা হচ্ছে না সে বিষয়ে ধারণা নিয়ে তাদের অধীনস্তদের দিকনির্দেশনা প্রদান করেন। যেহেতু সাংবাদিকদের সমাজের দর্পণ বলা হয় সেহেতু সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে অবশ্যই বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করতে হবে। অনেক ক্ষেত্রে সরকারের অনেক বিভাগে কাজের ক্ষেত্রে ত্রুটিবিচ্যুতি রয়েছে। আবার অনেক জায়গায় দুর্নীতিও হচ্ছে। তাই বলে একজনের দুর্নীতির ভার সকলের উপর চাপানো ঠিক হবে না। আর এই ধরনের সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে প্রথমে সংশ্লিষ্টদের গঠনমূলক সমালোচনা করে সংবাদ পরিবেশন করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, আমি আশা করবো আজকে সরকারের যেসব ভালো কাজ রয়েছে সেগুলো আপনাদের লেখনীর মাধ্যমে তুলে ধরবেন। আর এই ভালো কাজ করতে যেয়ে যারা সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে বিভিন্ন দুর্নীতির আশ্রয় নিচ্ছে ও জনগণকে ঠকাচ্ছে গঠনমূলক সমালোচনা ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে তাদের মুখোশ উন্মোচন করবেন। তবেই সাংবাদিকদের দ্বারা দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।
এছাড়াও তিনি তার বক্তব্যে নারী ও শিশুদের অধিকার রক্ষায় দেশের প্রতিটি জেলায় বিশেষ ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে সরকার যে কার্যক্রম পরিচালনা করছে সে সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন। বক্তব্যের শেষে তিনি প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন ঘোষণা করেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি,বিপিএম-সেবা বলেন, সাংবাদিকরা সমাজের মুখপাত্র হিসেবে কাজ করে। সমাজের চাহিদা হচ্ছে বস্তুনিষ্ঠ ও সত্যনিষ্ঠ সংবাদ। তড়িঘড়ি না করে ভালোভাবে খোঁজ-খবর নিয়ে সংবাদ পরিবেশন করা উচিত। এই প্রশিক্ষণ খুব মূল্যবান। পেশাগত দক্ষতার জন্য এ ধরণের প্রশিক্ষণ খুবই জরুরী। তিনি দীর্ঘদিন ঢাকায় উইমেন সাপোর্ট সেন্টারে কর্মকালীন সময়ে নারী ও শিশুরা কীভাবে নির্যাতনের শিকার হয় সে সংক্রান্ত অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন এবং নির্যাতিতা নারী-শিশুদের সামাজিক ও পারিপার্শ্বিক অবস্থার কথা চিন্তা করে তাদের নাম-ঠিকানা প্রকাশ না করার অনুরোধ জানান।
অন্যান্য বক্তাগণও সাংবাদিকতাকে মহান পেশা ও সাংবাদিকদেরকে সমাজের দর্পণ হিসেবে উল্লেখ করেন এবং সবসময় বিবেকের কাছে দায়বদ্ধ থেকে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের আহ্বান জানান। এছাড়াও তারা সাংবাদিকতা করার যোগ্যতার মাপকাঠি নির্ধারণ ও বার কাউন্সিলের মতো বিধিবদ্ধ সংস্থার সনদ বা অনুমোদন নিয়ে এ পেশায় যোগদানের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে শেষে সার্কিট হাউজের ২টি ভেন্যুতে অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিং এবং শিশু ও নারী উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।
অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিং প্রশিক্ষণে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে এবং শিশু ও নারী উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণে পিআইবি’র সিনিয়র প্রশিক্ষণ রাফিজা রহমান ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক রাহাত মিনহাজ রিসোর্সপার্সন হিসেবে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন।
উল্লেখ্য, ২৭-২৯শে আগস্টের ৩দিনব্যাপী অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিং প্রশিক্ষণে ৪৪জন এবং ২৭-২৮শে আগস্টের ২দিনব্যাপী শিশু ও নারী উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণে ২৭জনসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের মোট ৬৬জন সাংবাদিক অংশগ্রহণ করছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!