বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:২৮ পূর্বাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
লম্পট তারিকুলের বিচার ও মা’কে ফিরে পেতে চায় প্রতিবন্ধী সন্তানরা॥ডিসির নিকট স্মারকলিপি প্রদান বালিয়াকান্দিতে বাজারে পেঁয়াজের দাম মনিটরিং করলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব তুরস্কের বিরুদ্ধে এবার যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা পাংশায় দুইটি সংস্থা পরিদর্শন করলেন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক পাংশার হাবাসপুরে বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস পালিত জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে পুরুষদের দায়িত্ব-ভূমিকা শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত কালুখালীতে জব্দকৃত আড়াই মণ ইলিশ মাছ এতিমখানায় বিতরণ দলীয় সমর্থক আবু ডাক্তারের মৃত্যুতে রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের শোক রাজবাড়ীতে বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস ও স্যানিটেশন মাস উপলক্ষে র‌্যালী-হাত ধোয়া প্রদর্শনী ও আলোচনা সভা রাজবাড়ীতে বিশ্ব সাদা ছড়ি নিরাপত্তা দিবস পালিত

কুকুর ভেবে ভালুক নিয়ে ঘরে॥ বিপাকে গৃহকর্তা

  • আপডেট সময় রবিবার, ৮ এপ্রিল, ২০১৮

দক্ষিণ-পশ্চিম চীনের ইয়ুনান প্রদেশের এক পাহাড়ি অঞ্চলে ঘুরে বেড়াচ্ছিল একটি কুকুর ছানা। কালো রঙের কুকুর ছানাটি ছিল নিঃসঙ্গ ও অসহায়। তাকে দেখে চোখে পানি এসে যায় এক ব্যক্তির। কোলে তুলে বাড়ি নিয়ে আসেন তাকে। খেতে দেন দুধ, সসেজ ও ভুট্টা।

কিন্তু কুকুর ছানাটি একটু বড় হয়ে উঠতেই নানা অস্বাভাবিকতা দেখা দিতে থাকে। তার ডাক অন্য কুকুরদের মতো না। তাছাড়া বেশ সাবলীল ভাবেই কুকুরটি পেছনের দুই পায়ে ভর দিয়ে দাঁড়াতে পারে!

পরে ওই কুকুর মালিকের ভুল ভাঙে। কারণ কুকুর ছানা মনে করে একটি ভালুক ছানা তুলে এনেছিলেন তিনি।

মাত্র আট মাসে ভালুকটির দৈর্ঘ্য বাড়তে বাড়তে হয়ে যায় এক দশমিক সাত মিটার। ওজন দাঁড়ায় ৮০ কিলোগ্রাম। তাই নিরাপত্তার স্বার্থে তিনি ভালুকটিকে খাঁচার ভেতর শিকলের সঙ্গে বেঁধে রাখেন।

ইয়ুনান প্রদেশের বন বিভাগের কর্মীরা ভালুকটিকে আবিষ্কারের আগ পর্যন্ত তা খাঁচার ভেতরই ছিল। কালো ভালুকদের এভাবে খাঁচার মধ্যে আটকে রাখা বেআইনি। তাই ‘এনিমেল রেসকিউ’য়ের লোকজন এসে ভালুকটিকে প্রাণী সংরক্ষণ কেন্দ্রে নিয়ে যান।

ভালুকটির কিছু ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করে একটি চীনা ইউটিউব চ্যানেল। ধারণা করা হয়, ভিডিওটি ওই ভালুকের মালিকের ধারণ করা। ভিডিওটিতে দেখা যায়, কালো রঙের একটি ভালুক ছানা একটি কুকুরের সঙ্গে খেলছে।

ভিডিওতে ভালুক ছানাটিকে মোটেও কোনো কুকুরের মতো দেখাচ্ছে না, বলে মন্তব্য করেন অনেকেই। ভালুকটিকে ইচ্ছাকৃতভাবে ওই ব্যক্তি বাড়িতে আটকে রাখতে পারেন বলে সন্দেহ বন বিভাগের কর্মীদেরও।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!