fbpx
শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৫১ পূর্বাহ্ন
Logo
সংবাদ শিরোনাম ::
প্রধানমন্ত্রী আবুধাবী পৌঁছেছেন বহরপুরে আন্তঃ জেলা বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের খেলায় রাজশাহী একাদশ বিজয়ী ফরিদপুরে ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফের জন্মদিন পালন পূজা উদযাপন পরিষদের বর্ধিত সভায় রাজবাড়ীর প্রতিনিধি দলের অংশগ্রহণ লেখাপড়ার পাশাপাশি দৌলতদিয়া ঘাটে বই বিক্রি করে দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র নান্নু গোয়ালন্দে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন এবং স্মারকলিপি প্রদান পাংশায় পূজা উদযাপন পরিষদের নেতা দীপকের মাতার আদ্য শ্রাদ্ধত্তোর অনুষ্ঠান বালিয়াকান্দির কলেজ শিক্ষক মোজাম্মেলের মৃত্যু বার্ষিকী শ্রীপুরে ট্রাক চালকের বাড়ী থেকে বিশালাকৃতির গোখরা সাপ উদ্ধার গোয়ালন্দে অকাল প্রয়াত ২বন্ধু রনজু-লেবুর রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল

আগামী নভেম্বরের মধ্যে রাজবাড়ী জেলার প্রতিটি ঘরে পৌঁছে যাবে বিদ্যুৎ সংযোগ ——— জেনারেল ম্যানেজার মোঃ কামরুল ইসলাম গোলদার

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

॥আসহাবুল ইয়ামিন রয়েন/দেবাশীষ বিশ্বাস॥ ‘শেখ হাসিনার উদ্যোগ-ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ’ শ্লোগানকে সামনে রেখে উন্নত বিশ্বের মতো দেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে বর্তমান সরকার দেশের বিদ্যুৎ ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তনে কাজ করে যাচ্ছে। যার আওতায় বর্তমানে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর উন্নত বিশ্বের মতো তার স্বপ্নের সোনার বাংলার প্রতিটি ঘর যাতে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয় সেই স্বপ্ন দেখেছিলেন। কিন্তু তিনি তা বাস্তবায়ন করে যেতে পারেননি। তারই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে ও এদেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটাতে কাজ করছেন। তারই ধারাবাহিকতায় আগামী ২০২১ সালের মধ্যে ২৪ হাজার মেগাওয়াট ও ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।
২০১৯ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে বর্তমান সরকারের বিদ্যুত বিভাগের সাথে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিভাগ কাজ করছে। এ সকল বিভাগের মধ্যে তৃণমূল পর্যায়ে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে রাজবাড়ী জেলার ন্যায় দেশের প্রতিটি জেলায় বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি(পবিস) কাজ করছে।
বর্তমানে প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য রাজবাড়ী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি নিরলসভাবে কাজ করে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছে। সেই সাথে বিদ্যুতের ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে গ্রাহকের সংখ্যাও দ্বিগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। আর রাজবাড়ী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি গ্রাহকদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণসহ ভবিষ্যতে যাতে গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও কোন সমস্যা না হয় সেই লক্ষ্যে কাজ করছে।
ইতিমধ্যে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি আগামী নভেম্বর মাসের মধ্যে জেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। বর্তমানে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওতাধীন এলাকার শতকরা ৯২ ভাগ বিদ্যুতায়িত করার কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাকী কাজগুলো সমাধান করতে যে সমস্ত প্রতিবন্ধকতা রয়েছে সেগুলো নিরসন করে আগামী নভেম্বরের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুতায়ন করা সম্ভব হবে।
এ প্রসঙ্গে রাজবাড়ী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মোঃ কামরুল ইসলাম গোলদার জানান, ১৯৯৮ সালের ১০ই মে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি রাজবাড়ীতে কার্যক্রম শুরুর পর থেকে ২০০৮ সালে যেখানে পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক সংখ্যা ছিল ৪২ হাজার ৭৭৯ জন, সেখানে ২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সালের আগস্ট মাস পর্যন্ত পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ২৩ হাজার ৭৪৯ জনে। বর্তমানে রাজবাড়ীতে ১লক্ষ ৬৬ হাজার ৫২৮জন গ্রাহক পল্লী বিদ্যুতের আওতায় রয়েছে।
তিনি আরো জানান, রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ এবং কালুখালী উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা হিসেবে পরিগণিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় ইচ্ছা ও বোর্ডের চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল মঈদ উদ্দিনের প্রচেষ্টায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি আজকে এমন সাফল্য অর্জন করেছে। ২০১৮ সালের মধ্যে রাজবাড়ীর প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কাজ করে যাচ্ছে। রাজবাড়ীতে আর মাত্র ২৫হাজার গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা গেলেই শতভাগ গ্রাহককে পল্লী বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়া যাবে।
জেনারেল ম্যানেজার মোঃ কামরুল ইসলাম গোলদার বলেন, রাজবাড়ীতে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ৫৯.৫ মেয়াওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ৬টি উপকেন্দ্রের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে। বর্তমানে বিদ্যুতের চাহিদা ২৮ মেগাওয়াট হলেও ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এই অতিরিক্ত ক্ষমতাসম্পন্ন উপকেন্দ্রগুলো স্থাপন করা হয়েছে। রাজবাড়ী পল্লী বিদ্যুতের পরিকল্পনা অনুযায়ী গ্রাহকদের নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সেবা প্রদানের লক্ষ্যে গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ও পাংশার যশাই ইউনিয়নে ২০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ২টি উপকেন্দ্রের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। এছাড়াও ভবিষ্যতের পরিকল্পনা মাথায় রেখে গ্রাহক চাহিদা বৃদ্ধি পেলে যাতে বিদ্যুৎ সরবরাহে কোন সমস্যা না হয় সে লক্ষ্যে জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে আরও ৫টি ৫০ মেগাওয়াট সম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। বর্তমানে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ৬টাকায় প্রতি ওয়াট বিদ্যুৎ কিনে কৃষকদের সেচ সুবিধা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ৪টাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে। এর মাধ্যমে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে।
পল্লী বিদ্যুৎ পাওয়া প্রসঙ্গে বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের হঠাৎপাড়া গ্রামের মোঃ আবু দাউদ শেখ বলেন, আমরা স্বপ্নেও ভাবি নাই এখানে কোন দিন বিদ্যুৎ আসবে। তবে আশায় বুক বেঁধেছিলাম এমপি জিল্লুল হাকিমের কথার উপর। তিনি বলেছিলেন রাজবাড়ীতে ২০১৮ সালের মধ্যেই সব ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া হবে। তিনি কথা রেখেছেন। আমরা গত জুলাই মাসে বিদ্যুৎ পেয়েছি। বিদ্যুতের আলোর মুখ দেখেছি।
শতভাগ বিদ্যুৎ পাওয়া প্রসঙ্গে রাজবাড়ী ২ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ জিল্লুল হাকিম বলেন, শতভাগ বিদ্যুতায়ন প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টা। আমরা সেই প্রচেষ্টাকে দেখভাল করছি মাত্র। দুইটি উপজেলাতে পল্লী বিদ্যুতের শতভাগ গ্রাহক বিদ্যুৎ পেয়েছে। আগামী নভেম্বরের মধ্যে বাকী ৩টি উপজেলাসহ রাজবাড়ীর সকল গ্রাহক বিদ্যুৎ সংযোগ পাবে।
উল্লেখ্য যে, বিদ্যুৎ সপ্তাহ২০১৮ উপলক্ষে রাজবাড়ী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কার্যালয়ের গ্রাহকসেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে নির্দিষ্ট ফি অনুযায়ী অনলাইনে নতুন সংযোগ প্রদান করা হচ্ছে। যাতে গ্রাহকগণ অনলাইনে আবেদন করার এক ঘন্টার মধ্যে বিদ্যুতের সংযোগ পাচ্ছে বলে আবেদনকারীদের কাছ থেকে জানা যায়।
এছাড়াও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সকল সেবা বর্তমানে ডিজিটাল প্রযুক্তিতে প্রদান করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে গ্রাহকগণ তাদের কোন অভিযোগ পল্লী বিদ্যুৎ কার্যালয় থেকে সরাসরি ইন্টারনেটের মাধ্যমে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে করতে পারছেন। গ্রাহকদের সার্বিক সেবা প্রদানের লক্ষ্যে রাজবাড়ী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি নিরলসভাবে কাজ করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
error: আপনি নিউজ চুরি করছেন, চুরি করতে পারবেন না !!!!!!